নভেম্বর ৩০, ২০২২ ৪:১০ বিকাল



সাংবাদিক মরিয়ম খানম অপহরণের ৪দিনেও কোন ক্লু-উদঘাটন করতে পারেননি আইনশৃংখলা বাহিনী!

 

ইখতিয়ার উদ্দীন আজাদ:

সাংবাদিক মরিয়ম খানম অপহরণের ৪ দিন পেরিয়ে গেলেও এখনো কোন ক্লু-উদঘাটন করতে পারেননি আইনশৃংখলা বাহিনীর সদস্যরা। এতে তার পরিবার ও আত্মীয়সহ সাংবাদিক সমাজ চরম হতাশায় রয়েছেন।

গত ২৭ ফেব্রুয়ারি আনুমানিক দুপুর ১২ টায় তাকে অপহরণ করা হয়। তিনি সে সময় স্থানীয় এক কিন্ডারগার্টেন স্কুলে তার কর্মদিবস শেষ করে বাড়ি ফিরছিলেন।

অপহরণ হওয়া ওই নারী সাংবাদিক ইন্টারনেট ভিত্তিক টিভি চ্যানেল সংবাদ টিভির চট্টগ্রাম বুর‍্যো প্রধান ও বেশ কিছু অনলাইন পত্রিকায় সুনামের সাথে তার পেশাগত দ্বায়িত্ব পালন করে আসছিলেন।

অপহরণ হওয়ার বিষয়টি জানাজানি হলে সংবাদ টিভির চেয়ারম্যান জুয়েল খন্দকারের সহায়তায় লোহাগড়া থানা একটি মামলা দায়ের করা হয়। দায়েরকৃত অপহরণ মামলার সুরাহ্ করার আশ্বাস দিলেও গত ৪ দিনে কোন কিছুই করতে পারেনি লোহাগড়া থানা পুলিশ। এদিকে স্থানীয় প্রশাসনের দ্বায়িত্বে অবহেলাতেই এমনটা হচ্ছে বলে জানান মরিয়ম খানমের পরিবার। লোকেশন ট্র্যাকিংয়ের নামেও পায়তারা করছেন বলে জানান তার বাবা।

উল্লেখ্য, গত নভেম্বরে সাংবাদিক মরিয়ম খানমের ছবি ও নকল ফেসবুক আইডি তৈরি করে তার নামে নানান অশ্লীল কথা বার্তা ছড়িয়ে দেন বিশ্বের এই জনপ্রিয় সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে। রাস্তা ঘাট কিম্বা মেসেঞ্জারেও অনৈতিক সম্পর্কের প্রস্তাব দিতেন স্থানীয় এক বখাটে। সে ব্যাপারে সাংবাদিক মরিয়ম খানম নিজেই লোহাগড়া থানায় গিয়ে পুলিশ কর্মকর্তা সাইফুল ইসলামকে জানালে তিনি বিষয়টি এড়িয়ে যান। পরে সংবাদ টিভির বেশ কয়েকজন সাংবাদিক ও লোহাগাড়া উপজেলার বেশ কিছু সাংবাদিকদের তৎপরতায় জুনায়েদ নামের এক বখাটের নাম বেরিয়ে আসে।

এবিষয়ে সংবাদ টিভির চেয়ারম্যান জুয়েল খন্দকার বলেন, সাংবাদিক মরিয়ম খানম বেশকিছু দিন থেকে আমার চ্যানেলে চট্টগ্রাম বিভাগীয় প্রধান হিসেবে দ্বায়িত্ব পালন করছেন। তার অপহরণের বিষয়টি আমাকে অবগত করা হয়েছে, প্রশাসন জনগণের বন্ধু, স্থানীয় প্রশাসনের এমন আচরণ ও দ্বায়িত্বে অবহেলা অপ্রত্যাশিত। অপহরণকারী যেই হোক না কেন অতি দ্রুত তাদের আইনের আওতায় আনার দাবী জানান তিনি।



Comments are closed.

      আরও নিউজ