শুক্রবার, ২৩শে ফেব্রুয়ারি, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

ADVERTISEMENT

শুরু হলো রাবি ভর্তি পরীক্ষার চূড়ান্ত আবেদন

রাবি প্রতিনিধি:২০২৩-২৪ শিক্ষাবর্ষে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে (রাবি) স্নাতক ও স্নাতকোত্তর (সম্মান) শ্রেণিতে ১ম বর্ষে ভর্তি পরীক্ষার প্রাথমিক পর্যায়ের চূড়ান্ত আবেদন শুরু হয়েছে। শুক্রবার (২৬ জানুয়ারি) দুপুর ১২টা থেকে এ আবেদন শুরু হয়। চূড়ান্ত আবেদন শুরুর আগে যোগ্য প্রার্থীদের তালিকা প্রকাশ করে কর্তৃপক্ষ।

বিশ্ববিদ্যালয়টির আইসিটি সেন্টারের পরিচালক অধ্যাপক খাদেমুল ইসলাম মোল্লা স্বাক্ষরিত এক বিজ্ঞপ্তিতে এসএমএসের মাধ্যমে প্রার্থীদের বিষয়টি জানানো হয়েছে বলে তিনি জানান।

বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, প্রাথমিক আবেদনকারীদের মধ্যে এইচএসসি পরীক্ষার ফলাফলের ভিত্তিতে চূড়ান্ত আবেদনকারী নির্বাচন করা হয়েছে। একই জিপিএ প্রাপ্ত একাধিক প্রার্থীর ক্ষেত্রে এইচএসসি বা সমমান পরীক্ষায় প্রাপ্ত নম্বর বিবেচনা করা হয়েছে। এছাড়া ‘বি’ ইউনিটের বাণিজ্য ও বিজ্ঞান শাখার সকল প্রাথমিক আবেদনকারী চূড়ান্ত আবেদনের জন্য নির্বাচিত হয়েছেন।

এতে আরও জানানো হয়, প্রথম পর্যায়ের চূড়ান্ত আবেদনকারী হিসেবে ‘এ’ ইউনিটের মানবিক শাখায় ৪.৩৩, বিজ্ঞান শাখায় ৪.৮৩ এবং বাণিজ্য শাখায় ৪.৬৭ জিপিএ প্রাপ্তরা নির্বাচিত হয়েছেন। পাশাপাশি ‘বি’ ইউনিটের চূড়ান্ত আবেদনকারী হিসেবে মানবিক শাখায় ৪.৫৮ জিপিএ প্রাপ্তরা এবং বিজ্ঞান ও বাণিজ্য শাখায় সকল প্রাথমিক আবেদনকারী নির্বাচিত হয়েছেন। এছাড়া ‘সি’ ইউনিটে চূড়ান্ত আবেদনকারী হিসেবে বিজ্ঞান শাখায় ৪.৬৭, মানবিক শাখায় ৫.০০ এবং বাণিজ্য শাখায় ৫.০০ জিপিএ প্রাপ্তরা নির্বাচিত হয়েছেন।

বিজ্ঞপ্তিতে আরো বলা হয়, চূড়ান্ত আবেদনকালে ওয়েবক্যাম যুক্ত কম্পিউটার বা মোবাইল ব্যবহার করে সেলফির মাধ্যমে আবেদনকারীর ছবি প্রদান করতে হবে। সেলফির মাধ্যমে প্রদত্ত ছবিটি পরবর্তীতে আবেদনকারীর বায়োমেট্রিক ভেরিফিকেশনে ব্যবহার করা হবে। চারটি পর্যায়ে চূড়ান্ত আবেদন গ্রহণ করা হবে। যেকোনো পর্যায়ের জন্য নির্বাচিত প্রার্থীকে অবশ্যই সেই পর্যায়ের নির্ধারিত সময়ের মধ্যে আবেদন সম্পন্ন করতে হবে। পরবর্তীতে আবেদনের আর কোনো সুযোগ থাকবে না।

বিজ্ঞপ্তি অনুযায়ী, চারটি পর্যায়ে চূড়ান্ত আবেদনের সময়সূচি হলো- প্রথম পর্যায় ২৬ জানুয়ারি দুপুর ১২টা থেকে ২৯ জানুয়ারি রাত ১১টা ৫৯ মিনিট পর্যন্ত। দ্বিতীয় পর্যায় ১ ফেব্রুয়ারি দুপুর ১২টা থেকে ৩ ফেব্রুয়ারি রাত ১১টা ৫৯ মিনিট পর্যন্ত। তৃতীয় পর্যায় ৬ ফেব্রুয়ারি দুপুর ১২টা থেকে ৭ ফেব্রুয়ারি রাত ১১টা ৫৯ মিনিট পর্যন্ত এবং চতুর্থ পর্যায় ১০ ফেব্রুয়ারি দুপুর ১২টা থেকে ১১ ফেব্রুয়ারি রাত ১১টা ৫৯ মিনিট পর্যন্ত।

বিশ্ববিদ্যালয় সূত্র জানায়, গত ১৭ জানুয়ারি রাত ১১টা ৫৯ মিনিটে প্রাথমিক আবেদনের সময়সীমা শেষ হয়। এর আগে গত ৮ জানুয়ারি দুপুর ১২টা থেকে এ আবেদন প্রক্রিয়া শুরু হয়েছিল। বিশ্ববিদ্যালয়ের জনসংযোগ দপ্তর থেকে পাওয়া তথ্য অনুযায়ী, ভর্তি পরীক্ষার জন্য তিন ইউনিটে (এ, বি, সি) প্রাথমিক আবেদন জমা পড়েছে ৩ লাখ ৫৬ হাজার ৫০০টি।

এরমধ্যে মানবিক বা ‘এ’ ইউনিটে ১ লাখ ৩০ হাজার, বাণিজ্য বা ‘বি’ ইউনিটে ৮৮ হাজার ৩০০টি ও বিজ্ঞান বা ‘সি’ ইউনিটে ১ লাখ ৩৮ হাজার ২০০টি আবেদন জমা পড়েছে। প্রাথমিক আবেদন শেষে জিপিএর ভিত্তিতে নির্বাচিত ভর্তিচ্ছুরা চূড়ান্ত পর্যায়ের আবেদন করতে পারবেন ১১ ফেব্রুয়ারি রাত ১২টা পর্যন্ত।

চূড়ান্ত আবেদন শেষে ৫ মার্চ ‘সি’ ইউনিট, ৬ মার্চ ‘এ’ ইউনিট এবং ৭ মার্চ ‘বি’ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে। এ ক্ষেত্রে চূড়ান্ত আবেদন ফি ‘বি’ ইউনিটের (বাণিজ্য) জন্য ১ হাজার ১০০ টাকা এবং ‘এ’ ইউনিট (মানবিক) ও ‘সি’ ইউনিটের জন্য ১ হাজার ৩২০ টাকা।

এবারের ভর্তি পরীক্ষায় ৮০টি বহুনির্বাচনী প্রশ্নের মান হবে ১০০ নম্বর। ১ ঘণ্টা সময়সীমায় অনুষ্ঠিত প্রতিটি বহুনির্বাচনী প্রশ্নের মান হবে ১.২৫। ভর্তি পরীক্ষা তিনটি ইউনিটে অনুষ্ঠিত হবে। চার শিফটে অনুষ্ঠিত এ পরীক্ষার প্রতিটি শিফটে চূড়ান্তভাবে নির্বাচিত হওয়া ১৮ হাজার করে মোট ৭২ হাজার ভর্তিচ্ছু অংশ নিতে পারবেন।

সম্পর্কিত