ডিসেম্বর ১০, ২০২২ ৭:৫০ সকাল



রৌমারী-রাজিবপুর উপজেলায় শীতের তীব্রতায় মানুষ দিশেহারা

এস,এম,এ মোমেন, রৌমারী (কুড়িগ্রাম) প্রতিনিধি: কুড়িগ্রামের রৌমারী ও রাজিবপুর উপজেলায় শীতের তীব্রতা চরম আকার ধারণ করেছে। গত এক সপ্তাহ থেকে শীতের তীব্রতা বৃদ্ধি পাওয়ায় হতদরিদ্র, বয়স্ক, এবং নিম্নবিত্ত পরিবারের শিশু সন্তানরা ডায়রিয়াসহ নানা রোগে আক্রান্ত হচ্ছে। দেশের উত্তরাঞ্চলীয় জেলা কুড়িগ্রামের সীমান্তবর্তি অঞ্চল রৌমারী ও রাজিবপুর কুড়িগ্রাম জেলা থেকে ১৫টি নদ-নদী দ্বারা বিচ্ছিন্ন ভারতের আসাম রাজ্যের পাদদেশ ঘেঁষা রৌমারী ও রাজিবপুর উপজেলা ২টি। এ অঞ্চলটিতে সারা দেশের চেয়ে শীতের প্রভাব পড়ে অনেক বেশী। যেহেতু এলাকাটি ভারতীয় সীমান্ত লাগোয়া হিমালয়ের ভাটিতে সেহেতু হিমেল হাওয়ায় শৈত্য প্রবাহে বরফের ন্যায় ঠান্ডা বাতাস বইছে।

ডায়রিয়ায় এ পযর্ন্ত ২ দিনে শীত জনিত রোগে ১২ জন শিশু ও ৬ জন বৃদ্ধ রোগী আক্রান্ত হয়েছে । যারফলে দিনমজুর, নারী পুরুষ,ক্ষুধা নিবারনে কাজের সন্ধানে বাইরে যেতে পারছেনা। কাজ করতে না পারায় অর্থ সংকটে কিনতে পারছেনা শীতবস্ত্রসহ সংসারের প্রয়োজনীয় জিনিস।
এ ব্যাপারে রৌমারী উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান শেখ আব্দুল্লাহ বলেন, প্রাথমিক পর্যায় এ পর্যন্ত প্রতি উইনিয়নে ৪ শত ৬০ পিচ করে কম্বল বিতরন করা হয়েছে। কিছু দিনের মধ্যে আরোও শীতবস্ত্র আসবে, সে গুলো আমরা পেলে দূরুত্ব বিতরণ করবো।
উপজেলা প্রকল্প বাস্থবায়ন কর্মকর্তা আজিজুর রহমান বলেন, রৌমারীতে শীর্তাত মানুষের জন্য ৪ হাজার ৬০ পিচ করে কম্বল ৬টি ইউনিয়নে দেওয়া হয়েছে। এতে প্রতিটি ইউনিয়নে ২হাজার ৭’শ পিচ করে কম্বল বিতরন করা হয়।
এ বিষয়ে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের দায়ীত্বরত কর্মকর্তা মোমেনুল ইসলাম জানান, ইতিমধ্যে শীতজনিত রোগে কয়েকজন শিশু ও রয়স্ক লোক ভর্তি হয়েছে। এ অবস্থা থাকলে আরো রোগীর সংখ্যা বাড়তে পারে। তবে সর্তক রয়েছি,আশা করি চিকিৎসা সেবায় কোন সমস্যা হবে না।



Comments are closed.

      আরও নিউজ