বুধবার, ২৪শে এপ্রিল, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, ১১ই বৈশাখ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ, ১৫ই শাওয়াল, ১৪৪৫ হিজরি
বুধবার, ২৪শে এপ্রিল, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, ১১ই বৈশাখ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ, ১৫ই শাওয়াল, ১৪৪৫ হিজরি

রৌমারীতে সংঘর্ষের ঘটনায় থানায় মামলা ৫দিনেও দোষীদের গ্রেফতার করতে পারেনি পুলিশ

রৌমারী (কুড়িগ্রাম) প্রতিনিধিঃ একটি তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে দু‘গ্রুপে দফায় দফায় সংঘর্ষে আহত হয় ১০ জন। ঘটনাটি গ্রাম পর্যায় ছড়িয়ে পড়লে এলাকায় টানটান উত্তেজনা বিরাজ করছে। যে কোন মহুর্তে আবারো রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষের আশঙ্কা করছেন এলাকাবাসি। এব্যাপারে মাইদুল ইসলাম বাদী হয়ে ৮ জনকে আসামী করে রৌমারী থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। গত বুধবার রাত ৮ টার দিকে উপজেলার যাদুরচর ইউনিয়নের কর্তিমারী বাজারে এ ঘটনাটি ঘটে।

স্থানীয় ও মামলা সুত্রে জানা গেছে উপজেলার রৌমারী সদর ইউনিয়নের বড়াইবাড়ি গ্রামের সামাদ মেম্বারের ছেলে এরশাদুল হক একটি ছাগল বিক্রি করার জন্য কর্তিমারী বাজারে আসেন। ছাগলটি বিক্রয় না হলে নিজ বাড়িতে ফিরে যাওয়ার সময়ে কাশিয়াবাড়ি গ্রামের সিরাজ মন্ডলের ছেলে রাশেদুল ইসলাম তার ভাড়াটে অটোভ্যানে উঠতে চায়। ভ্যান মালিক রাশেদুলকে তার গাড়িতে নিতে অস্বীকার করলে সে রেগে যায়। এনিয়ে কথা কাটাকাটির এক পযার্য়ে রাশেদুল ভ্যান গাড়ির মালিক এরশাদুলকে কিলঘুষি মারতে থাকে। বিষয়টি এরশাদুল কর্তিমারী হাট-বাজার ইজারাদার তৌহিদুল ইসলামের কাছে বিচার দাবী করেন। হাট-বাজার ইজারাদার রাশেদুলকে হাট অফিসে আসতে বললে সে দলবল নিয়ে তৌগিদুল ইসলামের উপর বেধরক মারপিট করতে থাকে। তাকে বঁাচাতে গিয়ে দেলোয়ার, রবিউল ও ইসমাইল হোসেন আহত হয়।অপর গ্রুপের রাশেদুল, রানা, ফারুক ও মোশাররফসহ আহত হয় ৪ জন। পরে স্থানীয়রা আহতদের উদ্ধার করে রৌমারী হাসপাতালে ভর্তি করলে তৌহিদুল ও রবিউল এর অবস্থা আশঙ্কাজনক হওয়ায় কর্তব্যরত চিকিৎসক তাদেরকে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে রেফার্ড করেন। এঘটনায় মাইদুল ইসলাম বাদী হয়ে ৮ জনকে আসামী করে রৌমারী থানায় একটি মামলা দায়ের করেন।

রৌমারী থানার অফিসার ইনচার্জ আব্দুল্লা হিল জামান বলেন, এঘটনায় মামলা হয়েছে এবং আসামী গ্রেফতারের চেষ্টা অব্যাহত রয়েছে।

সম্পর্কিত