বুধবার, ২৪শে এপ্রিল, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, ১১ই বৈশাখ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ, ১৫ই শাওয়াল, ১৪৪৫ হিজরি
বুধবার, ২৪শে এপ্রিল, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, ১১ই বৈশাখ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ, ১৫ই শাওয়াল, ১৪৪৫ হিজরি

রাজবাড়ীতে ভালোবেসে পালিয়ে বিয়ে করেছিল 

রাজবাড়ী প্রতিনিধিঃরাজবাড়ীতে ভালোবেসে বিয়ের দেড় বছর পর বাবার বাড়ি থেকে মোছাম্মদ স্বপ্না (১৮) নামের এক তরুণীর মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। স্বামী মোঃ সোহেল মিয়া (২২) এর বিরুদ্ধে গলায় ওড়না পেচিয়ে তাকে হত্যার অভিযোগ উঠেছে।

মঙ্গলবার (২ এপ্রিল) এ ঘটনায় মামলা হলে সোহেল মৃধাকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

অভিযুক্ত সোহেল মিয়া রাজবাড়ী সদর উপজেলার রামকান্তপুর গ্রামের আলাউদ্দিন মৃধার ছেলে।

মৃত স্বর্ণা রাজবাড়ী সদরের জৌকুড়া গ্রামের মো. মুন্নাফ মৃধা ওরফে বোনা মৃধার মেয়ে।

মঙ্গলবার সন্ধ্যায় এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে রাজবাড়ী সদর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোঃ ইফতেখারুল আলম প্রধান জানান, দেড় বছর আগে সোহেল ও স্বর্ণার মধ্যে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে। এক পর্যায়ে স্বর্ণা সোহেলের হাত ধরে বাড়ি থেকে পালিয়ে গিয়ে দুজন বিয়ে করেন। বিয়ের পর থেকে সাংসারিক ছোটখাটো বিষয় নিয়ে মাঝেমধ্যেই তাদের মধ্যে ঝগড়া হতো।

১৫-১৬ দিন আগে তুচ্ছ বিষয় নিয়ে তাদের মধ্যে ঝগড়া হয়। তখন স্বর্ণা রাগ করে তার বাবার বাড়ি চলে যায়। সোমবার (১ এপ্রিল) সকাল ১১ টার দিকে সোহেল শ্বশুরবাড়ি বেড়াতে গিয়ে স্ত্রী স্বর্ণার সঙ্গে সুন্দর ব্যবহার করে সেখানে অবস্থান করে। বিকেল সাড়ে ৩ টার দিকে স্বর্ণার রুমের ভিতরে ডাকচিৎকারের শব্দ শুনে পরিবারের লোকজন রুমের ভিতরে গিয়ে স্বর্ণার নিথর দেহ ঘরের মেঝেতে পড়ে থাকতে দেখে। সে সময় স্বর্ণার স্বামী সোহেল ঘর থেকে বের হয়ে পালিয়ে যায়। পরিবারের সদস্যরা স্বর্ণাকে উদ্ধার করে রাজবাড়ী সদর হাসপাতালে নিলে সেখানকার চিকিৎসক স্বর্ণাকে মৃত ঘোষণা করেন।

ওসি আরও জানান, এ ঘটনায় মঙ্গলবার (২ এপ্রিল) স্বর্ণার মা বাদী হয়ে সোহেলের বিরুদ্ধে রাজবাড়ী সদর থানায় হত্যা মামলা করলে তাকে গ্রেফতার করে আদালতে পাঠানো হয়। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে সোহেল স্বর্ণাকে গলায় ওড়না পেঁচিয়ে শ্বাসরোধ করে হত্যা করেছে বলে স্বীকার করেছে। তার দেয়া তথ্যমতে হত্যায় ব্যবহৃত ওড়না উদ্ধার করে জব্দ করা হয়েছে।

সম্পর্কিত