রবিবার, ২৩শে জুন, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, ৯ই আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ, ১৭ই জিলহজ, ১৪৪৫ হিজরি
রবিবার, ২৩শে জুন, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, ৯ই আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ, ১৭ই জিলহজ, ১৪৪৫ হিজরি

রাজবাড়ীতে বিভিন্ন সরকারী চাকুরী দেওয়ার নামে প্রতারণাকালে যুবক গ্রেপ্তার

বালিয়াকান্দি ( রাজবাড়ী) প্রতিনিধি ॥রাজবাড়ীর বালিয়াকান্দিতে বিভিন্ন সরকারী চাকুরী দেওয়ার নামে প্রতারনাকালে মোঃ আলী রেজা সুমন (৩৮) নামে এক যুবককে গ্রেপ্তার করেছে জেলা গোয়েন্দা শাখা (ডিবি)। সে ফরিদপুর জেলার মধুখালী উপজেলার ঢুমাইন ইউনিয়নের নিশ্চিন্তপুর গ্রামের মোঃ এবাদত হোসেন মোল্লার ছেলে।

রোববার (৩১ মার্চ) দুপুর ২টার দিকে বালিয়াকান্দি সদরের সোনালী ব্যাংক লিমিটেড বালিয়াকান্দি শাখার সামনে থেকে গ্রেপ্তার করেন।

রাজবাড়ী জেলা গোয়েন্দা শাখা (ডিবি) অফিসার ইনচার্জ মোঃ মনিরুজ্জামান খান বলেন, বালিয়াকান্দি ওয়াপদা মোড়ে অবস্থানকালে সোনালী ব্যাংক লিমিটেড বালিয়াকান্দি শাখার সামনে একটি প্রতারক চক্র বাংলাদেশ সরকারের বিভিন্ন সরকারী প্রতিষ্ঠানে চাকুরীর নিশ্চয়তা দিয়ে নগদ অর্থ ও চেক আদান-প্রদান করছেন বলে খবরে অভিযান পরিচালনা করেন। সেখানে ডিবি পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে এদিক ওদিক ছুটে পালানোর চেষ্টাকালে উৎসুক জনতার সামনে মোঃ আলী রেজা সুমনকে আটক করা হয়। সবার সামনে স্বীকার করে ফরিদপুর জেলার মধুখালী উপজেলার ঢুমাইন ইউনিয়নের নিশ্চিন্তপুর গ্রামের ছেলে রাকিব মোল্লা তাকে বিভিন্ন সরকারী চাকুরীতে লোক নিয়োগের জন্য প্রার্থী যোগাড় করতে বলেছেন। ভাতিজা রাকিব মোল্লার কথামতো সে পুলিশের চাকুরীর জন্য প্রার্থী আবু তাহেরের মাতা স্বপ্না খাতুনের নিকট থেকে ১৪ লক্ষ টাকার চেক, প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগের কথা বলে কামরুজ্জামানের নিকট থেকে ২ টি ব্লাংক চেক নেয় তার ২ আত্মীয়ের চাকুরীর জন্য, মোঃ কামরুল মিয়ার নিকট থেকে ১৪ লক্ষ টাকার একটি আল-আরাফাহ ইসলামী ব্যাংকের চেক তার স্ত্রীকে চাকুরী দেওয়ার জন্য এবং নাসিরউদ্দিনের সুমুন্দির স্ত্রী ইমা জাহানের চাকুরীর জন্য নাসির উদ্দিনের নিকট থেকে সোনালী ব্যাংক লিমিটেডের ১৪ লক্ষ টাকার চেক নেয়।

ডিবির ওসি বলেন, সে আরো জানায় যে, একই ব্যক্তিদের কাছ থেকে ২ টি ব্লাংক চেক, ১০০ টাকার ৬ টি স্বাক্ষরিত ব্লাংক স্ট্যাম্প, প্রার্থীদের এসএসসি, এইচএসসি এবং ডিগ্রির মূল সনদপত্র ৬টি সংগ্রহ করে সে তার ভাতিজা রাকিব মোল্লাকে পাঠিয়ে দিয়েছেন। ইতোপূর্বেও তিনি এভাবে প্রার্থী যোগাড় করে রাকিব মোল্লাকে দিয়েছে কিন্তু এ পর্যন্ত কাউকে চাকুরী দিতে পারেনি। আর যে প্রার্থীদের যোগ্যতার ভিত্তিতে চাকুরী হয়ে যায় তাদের কাছ থেকে আগেই নেওয়া চেক এবং স্ট্যাম্পের ভয় দেখিয়ে চেকে উল্লেখিত টাকা রিকভারী করে নেয়। এভাবেই এ চক্রটি অপরাধমূলক বিশ্বাস ভঙ্গ করে প্রতারনার মাধ্যমে বিভিন্ন জেলার চাকুরী প্রত্যাশী প্রার্থীদের নিকট থেকে সরকারী চাকুরী দেওয়ার প্রলোভন দিয়ে চেক, স্ট্যাম্প, প্রার্থীর শিক্ষাগত যোগ্যতার মূল সনদ নিয়ে প্রতারনা করে অর্থ হাতিয়ে নিচ্ছে।
এ ব্যাপারে রাজবাড়ী জেলা গোয়েন্দা শাখা (ডিবি) এসআই মোঃ হাসানুর রহমান বাদী হয়ে বালিয়াকান্দি থানায় মামলা দায়ের করেছেন।

সম্পর্কিত