আজ ৬ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ, ২০শে মে, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ



বিরামপুরে প্রধানমন্ত্রীর ঈদ উপহার জমিসহ ঘর পেলেন ২২০ টি পরিবার।

ওয়ায়েস কুরুনী দিনাজপুর জেলা প্রতিনিধিঃ
মুজিব শত বার্ষিকী ও পবিত্র ঈদুল ফিতর উপলক্ষে সারাদেশের ন্যায় দিনাজপুরের বিরামপুরে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা কর্তৃক ৩য় পর্যায়ে রঙিন ঘর উপহার পেলেন উপজেলার ২২০ টি ভূমিহীন ও গৃহহীন পরিবার।

গত মঙ্গলবার (২৬ এপ্রিল) সকাল ১১ টায় মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে দেশব্যাপী ভূমিহীন ও গৃহহীন পরিবারের মাঝে ৩য় পর্যায়ে জমি ও গৃহ হস্তান্তরের শুভ উদ্বোধন করেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এরই ধারাবাহিকতায় বিরামপুর উপজেলায় ২২০ টি ভূমিহীন ও গৃহহীন পরিবারের হাতে আনুষ্ঠানিক ভাবে গৃহ ও জমির দলিল হস্তান্তর করেন, প্রধান অতিথি দিনাজপুর-৬ আসনের সংসদ সদস্য (এমপি)শিবলী সাদিক।

উপজেলা প্রশাসন আয়োজিত ঘরের চাবি ও দলিল হস্তান্তর অনুষ্ঠানে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) পরিমল কুমার সরকার, পৌর মেয়র অধ্যক্ষ আককাস আলী, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যানদ্বয় উম্মে কুলসুম বানু ও মেজবাউল ইসলাম মন্ডল, সহকারী কমিশনার (ভূমি) মুহসিয়া তাবাসসুম, উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডাঃ শ্যামল কুমার রায়, থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সুমন কুমার মহন্ত, উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা কাওসার আলী, মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা নূর আলম, বিরামপুর মহিলা কলেজের অধ্যক্ষ শিশির কুমার সরকার ও উপাধ্যক্ষ মেজবাউল হক, উপজেলা আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি শিবেশ কুমার কুন্ডু ও নাড়ু গোপাল কুন্ডু, বিরামপুর প্রেসক্লাবের সভাপতি আকরাম হোসেন ও সাধারণ সম্পাদক সহকারী অধ্যাপক মশিহুর রহমান উপস্থিত ছিলেন।

এসময় ইউপি চেয়ারম্যানবৃন্দ,বিভিন্ন সরকারী দপ্তরের কর্মকর্তাবৃন্দ, বীরমুক্তিযোদ্ধাবৃন্দ, বিভিন্ন স্কুল- কলেজের প্রধানগণ,শিক্ষক, উপজেলা ও ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের অঙ্গ সংগঠনের নেতাকর্মীবৃন্দ, প্রিন্ট ও ইলেকট্রনিক মিডিয়ার সাংবাদিকবৃন্দসহ উপজেলার সুবিধাভোগী জনগোষ্ঠীররা উপস্থিত ছিলেন।

জানতে চাইলে উপজেলা নির্বাহী অফিসার পরিমল কুমার সরকার বলেন, ভূমি ও গৃহ নির্মাণ প্রকল্পের আওতায় বিরামপুর উপজেলায় ৩য় পর্যায়ে ২২০টি ভূমিহীনকে জমির দলিল এবং ঘরের চাবি হস্তান্তর করা হয়। সকল ঘরে বিদ্যুৎ ও সুপেয় পানি সরবরাহের বন্দোবস্ত করা হয়েছে। প্রতিটি জমি ও বাড়ির মালিকানা স্বামী-স্ত্রীর যৌথ নামে দেওয়া হয়েছে। দেশের গৃহহীন প্রতিটি মানুষ ঘর না পাওয়া পর্যন্ত এই কার্যক্রম চলমান থাকবে বলে জানান সংশ্লিষ্টরা।



Comments are closed.

      আরও নিউজ

ফেসবুক পেইজ