বৃহস্পতিবার, ১৮ই এপ্রিল, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, ৫ই বৈশাখ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ, ৯ই শাওয়াল, ১৪৪৫ হিজরি
বৃহস্পতিবার, ১৮ই এপ্রিল, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, ৫ই বৈশাখ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ, ৯ই শাওয়াল, ১৪৪৫ হিজরি

বালিয়াকান্দিতে স্কুল মাঠে নির্মাণ সামগ্রী রাখাই বন্ধ খেলাধুলা

বালিয়াকান্দি (রাজবাড়ী) প্রতিনিধিঃরাজবাড়ীর বালিয়াকান্দিতে অনুমতি না নিয়েই স্কুল মাঠে সড়ক নির্মাণ কাজের ঠিকাদার পাথর সহ বিভিন্ন সামগ্রী রাখায় শিক্ষার্থীদের খেলাধুলা বন্ধ হয়ে পড়েছে। এতে শিক্ষক, শিক্ষার্থী ও অভিভাবকদের মাঝে ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে।

অলংকারপুর আদর্শ মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা বলেন, রাতের অন্ধকারে স্কুলের খেলার মাঠে খোয়া, পাথর, বালি, পিচ ও নির্মাণ সামগ্রী রাখার কারণে আমাদের খেলাধুলা বন্ধ হয়ে গেছে। দ্রুত খেলার পরিবেশ সৃষ্টি করার জন্য দাবী জানাই।
স্থানীয় এলাকাবাসী বলেন, ঠিকাদার কাজের শুরুতেই নিন্মমানের ইট ও খোয়া ব্যবহার করে আসছে। বিষয়টি নিয়ে তাকে বারবার বলা হলেও কোন কর্ণপাত করছে না। আবার কোন অনুমতি না নিয়ে স্কুলের খেলার মাঠে নির্মাণ সামগ্রী রেখে শিক্ষার্থীদের খেলাধুলা বন্ধ করে দিয়েছে।
শালমারা-জঙ্গল সড়ক নির্মাণ কাজের ঠিকাদার হাবিবুর রহমান বলেন, নির্মাণ সামগ্রী রাখার জায়গা না থাকায় স্কুলের প্রধান শিক্ষকের অনুমতি নিয়েই মাঠে নির্মাণ সামগ্রী রাখা হয়েছে। স্কুলের শিক্ষার্থীদের খেলাধুলার সামগ্রী কিনে দিতে চেয়েছি। তবে অনুমতি না নিয়ে রাখার অভিযোগ প্রসঙ্গে বললে তিনি এড়িয়ে গিয়ে দেখা করতে চান।
অলংকারপুর আদর্শ মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মাহবুব আলম বলেন, সড়ক নির্মাণ কাজের জন্য আনা পাথর ভর্তি একটি ট্রাক বিদ্যালয়ের খেলার মাঠে এসে বিনা অনুমতিতে পাথর নামাতে থাকে। তাদেরকে নিষেধ করলে, ট্রাক উঠাতে সমস্যার অজুহাতে নামানোর পর সরিয়ে নিতে চায়। পরে রাতের অন্ধকারে বিদ্যালয়ের মাঠে পাথর, পিচ, বালি সহ নির্মাণ সামগ্রী রেখেছে। তাদেরকে সরিয়ে নেওয়ার জন্য অনুরোধ করলেও সরিয়ে নিচ্ছে না। এতে শিক্ষার্থীদের খেলাধুলা বন্ধ হয়ে পড়েছে। বিষয়টি কমিটিকে জানানো হয়েছে।
জঙ্গল ইউনিয়নের চেয়ারম্যান কল্লোল কুমার বসু বলেন, সড়ক নির্মাণ কাজের ঠিকাদার তার ইচ্ছা মতো কাজ করছে। স্কুলের মাঠে কারো অনুমতি ছাড়াই নির্মাণ সামগ্রী রেখে শিক্ষার্থীদের খেলাধুলা বন্ধ করে দিয়েছে।

বালিয়াকান্দি উপজেলা প্রকৌশলী খোন্দকার রাহাত ফেরদৌস বলেন, নিন্মমানের কোন সামগ্রী ব্যবহারের সুযোগ নেই। এলাকাবাসীর অভিযোগে সরেজমিনে গিয়ে দেখেছি। তবে মালামাল কোথায় রাখবে এটা ঠিকাদারের ব্যাপার।
বালিয়াকান্দি উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ রফিকুল ইসলাম বলেন, বিষয়টি আমার জানা নেই। তবে খোঁজ নিয়ে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

সম্পর্কিত