ডিসেম্বর ৮, ২০২২ ৭:৩২ বিকাল



নওগাঁর ধামইরহাটে কিশোরীকে তুলে এনে শালবনে গণধর্ষণ : গ্রেফতার-৩

 

ইখতিয়ার উদ্দীন আজাদ, নওগাঁ প্রতিনিধি:

নওগাঁর ধামইরহাটে বন্ধুত্বের সখ্যতা গড়ে তুলে এক কিশোরীকে ঘুরার কথা বলে কৌশলে এক বনে নিয়ে গণধর্ষণের শিকার হয়েছে।

ওই কিশোরীর চিৎকার শুনে এলাকাবাসী তাকে উদ্ধার করেন। পরে তিন ধর্ষককে হাতেনাতে স্থানীয়রা আটক করে থানা পুলিশের কাছে তাদেরকে হস্তান্তর করেন।

স্থানীয় এলাকাবাসী ও থানা সূত্র জানায়, উপজেলা ধামইরহাট ইউনিয়নের অন্তর্গত আলতাদিঘী শালবন জাতীয় উদ্যানের পশ্চিম পাড়ে শালবনে শনিবার (২৮ মার্চ) দুপুর তিনটার দিকে এই ধর্ষণের ঘটনা ঘটে। উপজেলার জাহানপুর ইউনিয়নের অন্তর্গত বড়শিবপুর ঘোনাপাড়া গ্রামের জনৈক ব্যক্তির কিশোরী মেয়ে (১৬) কে জোর করে কৌশলে আলতাদিঘীতে তুলে আনে ওই ধর্ষকরা। পরবর্তীতে মেয়েটির উপর পাশবিক নির্যাতন চালায়। এক পর্যায়ে মেয়েটির চিৎকার শুনে আশপাশের লোকজন ছুটে আসে। এলাকাবাসীকে মেয়েটি কে উদ্ধার করে এবং তিন ধর্ষককে হাতেনাতে আটক করে।

আটককৃতরা হলো উপজেলার জাহানপুর ইউনিয়নের অন্তর্গত মঙ্গলবাড়ী হাসপাতাল পাড়ার আনোয়ার হোসেনের ছেলে শরিফুল ইসলাম (১৯), একই এলাকার জোবায়দুল হকের ছেলে আব্দুল মমিন (২০) এবং আতোয়ার হোসেনের ছেলে মোল্লা হোসেন (২৪)। খবর পেয়ে থানা পুলিশ মেয়েসহ তিন ধর্ষককে আটক করে থানায় নিয়ে আসে।

ধামইরহাট থানার অফিসার ইনচার্জ মো.শামীম হাসান সরদার বলেন, আসামীদেরকে আটক করা হয়েছে।

ওসি আরো জানান, ওই ঘটনায় থানায় মামলা দায়ের প্রক্রিয়াধীন রয়েছে।



Comments are closed.

      আরও নিউজ