বৃহস্পতিবার, ২৩শে মে, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, ৯ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ, ১৫ই জিলকদ, ১৪৪৫ হিজরি
বৃহস্পতিবার, ২৩শে মে, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, ৯ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ, ১৫ই জিলকদ, ১৪৪৫ হিজরি

ধরণীবাড়ি ইউনিয়নের মাঝবিল বাজারের ঈদগাঁও মাঠে বৃষ্টির জন্য ইস্তিস্কার নামাজ আদায়

স্টাফ রিপোর্টার,মেজবাহঃতীব্র তাপদাহ ও ভ্যাপসা গরম থেকে পরিত্রাণের জন্য আল্লাহর কাছে পানাহ চেয়ে ধরণী বাড়ি মাঝবিল ঈদগাঁও মাঠে ইস্তিস্কার নামাজ আদায় করেছেন এলাকাবাসী। ধরণীবাড়ি ইউনিয়নের মাঝবিল গ্রামের উদ্যোগে এই নামাজ অনুষ্ঠিত হয়।

বুধবার (২৪ এপ্রিল) সকাল ৯ টায় অনুষ্ঠিত ইস্তিস্কার নামাজে ইমামতি করেন ড. মাওলানা মো: মিনহাজুল ইসলাম।

নামাজে ধরনিবাড়ি ইউনিয়নের সর্বস্তরের মানুষ অংশগ্রহণ করেন। নামাজ শেষে দেশের ওপর দিয়ে বয়ে চলা তীব্র দাবদাহ থেকে আল্লাহর কাছে পানাহ চাওয়া হয় ।

তীব্র দাবদাহে জনজীবন বিপর্যস্ত৷ ওষ্ঠাগত মানুষ ও পশুপাখির জীবন৷ হুমকির মুখে ফল ও ফসল। এই তাপদাহ থেকে পরিত্রাণের জন্য আল্লাহর কাছে বৃষ্টি চেয়ে তওবা, ইস্তিস্কার নামাজ ও দোয়া আদায় করেছেন কয়েক’শত মুসল্লী।

জানা গেছে, বৃষ্টির জন্য সকাল থেকে ধরণীবাড়ি মাঝবিল ঈদগাঁও মাঠে খোলা আকাশের নিচে প্রথমে মুসল্লিরা পাপ মোচনের জন্য কান ধরে তওবা করেন। পরে টুপি ও পাঞ্জাবি উল্টে সালাতুল ইস্তিস্কার নামাজ ও পরে দুই হাত উল্টে ঘন্টা ব্যাপী দোয়া অনুষ্ঠিত হয়।

এ সময় শত শত মুসল্লি আল্লাহ কাছে চোখের পানি ছেড়ে দিয়ে অনাবৃষ্টি থেকে মুক্তির জন্য আল্লাহ কাছে মোনাজাত করেন।

ধরণী বাড়ি ইউনিয়নের গ্রামের মোঃ নাজমুল হাসান বলেন, প্রায় ৩ মাস ধরে এলাকায় কোন বৃষ্টিপাত নেই। স্যালো মেশিন দিয়ে পানি দিতে দিতে অবস্থা খারাপ। প্রচন্ড এই তাপদেহে ভুট্টার গাছ গুলোও পুড়ে যাচ্ছে। জমিতে কোন রস নাই। পাট ক্ষেতের অবস্থাও খুব খারাপ। বৃষ্টির জন্য নামাজ হবে এ কথা শুনেই ছুটে এসেছি।

মাঝবিল বাজারের মোঃ দিদার হোসেন বলেন-  অনাবৃষ্টির কারণে ব্যবসায়ী’সহও বিভিন্ন এলাকার মানুষ মিলে ইস্তিস্কার নামাজ আদায় করেছি। দোয়া করেছি এই এলাকায় রহমতের বৃষ্টি দিয়ে পরিপূর্ণ করে দেন। অনাবৃষ্টির কারণেও ক্ষেত, ফসল পশুপাখি কষ্টে আছে এজন্য আল্লাহ তালার কাছে রহমতে বৃষ্টি বর্ষণের জন্য দোয়া করেন।

সম্পর্কিত