ফেব্রুয়ারী ৩, ২০২৩ ১০:০৬ বিকাল



তাহিরপুরে শালিসে মাফ চেয়ে কয়লা ফেরত দিয়েছে চাঁদাবাজ আবুল খায়ের

 

সুনামগঞ্জ প্রতিনিধি
সুনামগঞ্জের তাহিরপুরে সালিসে বৈধ কয়লা প্রমান হওয়ায় মাপ ও মুছলেখা দিয়ে ৩০ টন কয়লা ফেরত দিয়েছে পাটলাই নদীর চিহ্নিত চাঁদাবাজ আবুল খায়ের। চাঁদাবাজ আবুল খায়ের উপজেলার শ্রীপুর উত্তর ইউনিয়নের গোলকপুর গ্রামের গোলেনুরের মাদাকাশক্ত ছেলে।
কয়লা ব্যাবসায়ি হীরা মিয়া জানান, তাহিরপুর কয়লা আমদানীকারক সমিতির চারাগাও শুল্কস্টেশনের মেসার্স এসপি এন্টারপ্রাইজ হতে ৩০ টন কয়লা ক্রয় করে কমলাকান্দা নিয়ে যাচ্ছিলেন। পথিমধ্যে পাটলাই নদীর বৈঠাখালী নামক স্হানে চাঁদাবাজ আবুল খায়েরের নেতৃত্বে সংঘবদ্ধ চাঁদাবাজরা তার কয়লা নৌকা আটক করে মোটা অংকের চাঁদা দাবী করে। তার চাহিতো চাদা না দেয়ায় তার কয়লার নৌকা জোরপূর্বক আটক করে রাখে। পরে বিষয়টি থানায় লিখিত অভিযোগ করলে পুলিশ ঘটনাস্থলে এসে সমিতির অফিসে বসে কাগজপত্র দেখে কয়লা বৈধ হওয়ায় আবুল খায়ের কে কয়লা ফেরত দিতে বলে। পরে চাঁদাবাজ আবুল খায়ের প্রকাশ্যে মাপ ও মুছ লেখা দিয়ে কয়লা ফেরত দিতে বাধ্য হয়। কয়লা ফেরত দেয়ার পর চাঁদাবাজ আবুল খায়ের ওল্ঠো সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে অপপ্রচার চালাচ্ছে কয়লা না কি আমি মুছলেখা দিয়ে ফিরত নিয়ে এসেছি। তিনি বলেন মুছলেখা বা মাপ ছেয়ে কয়লা ছাড়িয়ে নেননি। বরং আবুল খায়ের মাপ ও মুছলেখা দিয়েছে ভবিষ্যতে নদীতে চাঁদাবাজি করবেনা।
এ বিষয়ে আবুল খায়ের নিজেকে কয়লা আমাদানিকরক সমিতির আন্তর্জাতিক সম্পাদক দাবি করে বলেন, ব্যবসায়ী হিরার সঙ্গে একটু ভূলবুজাবুজি হয়েছিল, পরে সমিতিতে বসে সালিসের মাধ্যমে বিষয়টি নিষ্পত্তি হয়েছে।
ট্যাকেরঘাট ফাঁড়ি ক্যাম্পের ইনচার্জ এ এসআই আবু মোছা জানান, ব্যবসায়ি হিরার মিয়ার কয়লা বৈধ হওয়ায় তার কয়লা ফেরত দেয়া হয়েছে।



Comments are closed.

      আরও নিউজ