বুধবার, ২৯শে মে, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, ১৫ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ, ২১শে জিলকদ, ১৪৪৫ হিজরি
বুধবার, ২৯শে মে, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, ১৫ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ, ২১শে জিলকদ, ১৪৪৫ হিজরি

জয়ে ফেরার সুযোগ সাকিবের

নিউজ ডেস্কঃ

দুই দলের অবস্থা প্রায় একই। পাঁচ ম্যাচে জয় মাত্র একটি। চলমান ওয়ানডে বিশ্বকাপে মুখোমুখি হচ্ছে দুই দল বাংলাদেশ ও নেদারল্যান্ডস। জ্বালানি খাতে বাংলাদেশ অবশ্যই এগিয়ে আছে। টানা চার হারের তিক্ত অভিজ্ঞতা কাটিয়ে এই ম্যাচে জয়ে ফেরার ভালো সুযোগ রয়েছে সাকিব আল হাসানের দলের।

শনিবার কলকাতার ইডেন গার্ডেনে টুর্নামেন্টে নিজেদের ষষ্ঠ ম্যাচে নেদারল্যান্ডসের মুখোমুখি হবে বাংলাদেশ। ম্যাচটি শুরু হবে বাংলাদেশ সময় দুপুর আড়াইটায়।

আফগানিস্তানের বিপক্ষে ৬ উইকেটের জয় দিয়ে বিশ্বকাপ শুরু করার পর টানা চার ম্যাচ হেরে লজ্জায় পড়ে বাংলাদেশ। পয়েন্ট টেবিলের তলানিতে নেমে গেছে টাইগাররা। টাইগাররা তাদের অভিজ্ঞতা এবং শক্তির কারণে নেদারল্যান্ডসের বিপক্ষে ফেভারিট হিসেবে মাঠে নামে।

নেদারল্যান্ডসও জিতেছে ৫ ম্যাচে ১টিতে। দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে নেদারল্যান্ডসের ৩৫ রানের জয়কে ক্রিকেট ইতিহাসের সবচেয়ে বড় আপসেট হিসেবে বিবেচনা করা হয়।

বাংলাদেশের ২ পয়েন্ট থাকলেও রান রেটে পিছিয়ে আছে নেদারল্যান্ডস। দশ দলের টুর্নামেন্টে অষ্টম স্থানে রয়েছে বাংলাদেশ।

দুই ভিন্ন প্রতিপক্ষের কাছে শোচনীয় হারের স্বাদ নিয়ে মুখোমুখি হবে বাংলাদেশ ও নেদারল্যান্ডস। ওডিআই বিশ্বকাপের ইতিহাসে নেদারল্যান্ডস সবচেয়ে বড় পরাজয়ের সম্মুখীন হয় কারণ তারা অস্ট্রেলিয়ার 399 রানের বিপক্ষে 8 উইকেটে 309 রানে ম্যাচ হেরে যায়। অন্যদিকে দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে ১৪৯ রানের বড় ব্যবধানে হেরেছে বাংলাদেশ।

সেমিফাইনাল খেলার লক্ষ্য নিয়েই বিশ্বকাপ শুরু করেছিল বাংলাদেশ। কিন্তু প্রথম ম্যাচের পর টানা চার হারে বাংলাদেশের স্বপ্ন ফিকে হয়ে যায়।

বিশ্বকাপে এখন পর্যন্ত একবারই মুখোমুখি হয়েছে বাংলাদেশ-নেদারল্যান্ড। 2011 বিশ্বকাপে টাইগাররা 46.2 ওভারে মাত্র 160 রানে ডাচদের 6 উইকেটে পরাজিত করে। ওই ম্যাচে বাংলাদেশের হয়ে খেলেছিলেন সাকিব আল হাসান, মুশফিকুর রহিম ও মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ।

তবে ২০১০ সালে নেদারল্যান্ডসের বিপক্ষে প্রথম ওয়ানডেতে ৬ উইকেটে হেরেছিল বাংলাদেশআগামীকালের ম্যাচটি এই ফরম্যাটে দুই দলের তৃতীয় মুখোমুখি।

নেদারল্যান্ডস স্বাভাবিকভাবেই দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে তাদের জয় থেকে অনুপ্রেরণা খুঁজবে। নিজেদের সম্মান ধরে রাখতে এবং ভক্তদের স্বস্তি দিতে বিশ্বকাপে হারের চক্র ভাঙতে মরিয়া বাংলাদেশ।

বিশ্বকাপে খারাপ সময় কাটানো সাকিব নেদারল্যান্ডসের বিপক্ষে ম্যাচের আগে নিজের ভুল শুধরে শৈশবের মেন্টর নাজমুল আবেদিন ফাহিমের সঙ্গে কাজ করতে ঢাকায় এসেছিলেন। ইতিমধ্যেই কলকাতায় দলের সঙ্গে যোগ দিয়েছেন তিনি।

দীর্ঘদিন ধরে তার মেন্টরের সঙ্গে কাজ করার পর সাকিব ফর্মে ফিরতে পারেন কিনা সেটাই দেখার। মিরপুর শের-ই-বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে অনুশীলন শেষে মাঠ ছেড়ে সাকিবকে উল্লাস করেছেন ভক্তরা। এই ঘটনাই প্রমাণ করে বাংলাদেশ দলের হতাশাজনক পারফরম্যান্সে ভক্তরা কতটা হতাশ।

.নেদারল্যান্ডসের বিপক্ষে জয় ছাড়া অন্য কোনো ফলাফল অবশ্যই দেশের ক্রিকেটের জন্য খারাপ লক্ষণ। বাংলাদেশ দল: সাকিব আল হাসান (অধিনায়ক), নাজমুল হোসেন শান্ত (সহ-অধিনায়ক), লিটন দাস, তানজিদ হাসান, তাওহিদ হৃদয়, মুশফিকুর রহিম। , মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ, মেহেদী হাসান মিরাজ, নাসুম আহমেদ, মাহেদীহাসান, তাসকিন আহমেদ, মুস্তাফিজুর রহমান, হাসান মাহমুদ, শরিফুল ইসলাম ও তানজিম হাসান।নেদারল্যান্ডস দল: স্কট এডওয়ার্ডস (অধিনায়ক), কলিন অ্যাকারম্যান, শরিজ আহমেদ, ওয়েসলি বারেসি, লোগান ফন বেক, আরিয়ান দত্ত, সিব্র্যান্ড এঙ্গেলব্রেখট, রায়ান ক্লাইন, বাস ডি লিডে, পল ফন মিকেরেন, রলফ ভন ডের মারু, তেজা নিদামানুরু, ম্যাক্স ও’ দাউদ, বিক্রম সিং এবং সাকিব জুলফিকার।

সম্পর্কিত