বুধবার, ১৯শে জুন, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, ৫ই আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ, ১৩ই জিলহজ, ১৪৪৫ হিজরি
বুধবার, ১৯শে জুন, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, ৫ই আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ, ১৩ই জিলহজ, ১৪৪৫ হিজরি

চেতনা নাশোকে আওয়ামী লীগ নেতার মৃত্যু ও মৃত্যুশয্যায় স্ত্রীঃ অজ্ঞাতনামা আসামিদের বিরুদ্ধে রাজবাড়ী থানায় মামলা

মোঃ আমিরুল হক, রাজবাড়ী ঃচোরদের খাওয়ানো চেতনা নাশক ওষুধে আওয়ামী লীগ নেতা রতন কুমার দাসের (৭০) এর মৃত্যু হয়েছে এবং মুমুর্ষ অবস্থায় আইসিইউতে রয়েছেন তার স্ত্রী কনিকা রানী নাগ (৬০)। এ ঘটনায় মঙ্গলবার সকালে অজ্ঞাতনামা চোরদের বিরুদ্ধে রাজবাড়ী থানায় একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে।

মর্মান্তিক এ ঘটনা ঘটেছে গত শনিবার রাতে রাজবাড়ী সদর উপজেলার শহীদওহাবপুর ইউনিয়নের আহলাদিপুর গ্রামে। মৃত রতন কুমার দাস শহীদওহাবপুর ইউনিয়নের ৫ নম্বর ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি ও একই ওয়ার্ডের সাবেক মেম্বার এবং তার স্ত্রী স্থানীয় মধুপুর ছকিরন নেছা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক।
মামলার বাদী ও মৃত রতন কুমার দাসের ছেলে সৌরভ দাস বলেন, তিনি ও তার বোন মিশু দাস রাজধানী ঢাকাতে অবস্থান করার পাশাপাশি পড়াশোনা করেন। যে কারণে গ্রামের বাড়ীতে বাবা-মা বসবাস করতেন। গত শনিবার রাতে অজ্ঞাতনামা চোরেরা বাড়ীর রান্না ঘরের টিনের চাল খুলে ঘরে প্রবেশ করে এবং তার বাবা ও মাকে চেতনানাশক ওষুধ খাওয়ায়। পরবর্তীতে তার মায়ের শরীরে থাকা দুই লক্ষাধিক টাকা মূল্যের স্বর্ণালংকার নিয়ে যায়। ঘটনার পর দিন সকালে প্রতিবেশি আখিঁ খাতুন আমাদের বসত ঘরের দরজা খোলা দেখে এগিয়ে আসেন এবং মায়ের নাম ধরে ডাকাডাকি করেন। এক পর্যায়ে ঘরের মধ্যে উকি দিয়ে দেখেন তার বাবা খাটের উপর অচেতন অবস্থায় পড়ে আছে এবং তার মা ঘরের মেঝেতে পরে ছটফট করছেন। ওই সময়ই তিনি চিৎকার করে স্থানীয়দের জড়ো করেন। তারা তার বাবা ও মাকে উদ্ধার করে প্রথমে রাজবাড়ী পরে ফরিদপুর এবং শেষে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যান। তবে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেবার পর চিকিৎসকরা তার বাবাকে মৃত বলে ঘোষণা করেন। পরবর্তীতে মাকে ঢাকার মালিবাগের পিউপেল হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। বর্তমানে তার মা মৃত্যুশয্যায়। বর্তমানে তার মা ওই হাসপাতালের আইসিইউতে মুমুর্ষ অবস্থায় চিকিৎসাধীন রয়েছেন। ইতোমধ্যেই তার বাবার মরদেহ গ্রামের বাড়ীতে এনে সৎকার করা হয়েছে।

রাজবাড়ী থানার অফিসার ইনচার্জ ইফতেখারুল আলম প্রধান বলেন, ওই ঘটনায় রাজবাড়ী থানায় একটি মামলা দায়ের হয়েছে। ইতোমধ্যেই তদন্ত কার্যক্রমের পাশাপাশি অপরাধিদের গ্রেপ্তার অভিযান শুরু করেছেন।

সম্পর্কিত