ডিসেম্বর ৮, ২০২২ ৭:১৬ বিকাল



খানমরিচে ইউ,পি চেয়ারম্যানের অযথা জনসমাগম না করার আহবান

 

রাজিবুল করিম রোমিও, নিজস্ব প্রতিবেদক, ভাংগুড়া (পাবনা):

করোনা প্রতিরোধে সরকারি বেসরকারি ভাবে নেয়া হয়েছে নানা উদ্যোগ।করোনা প্রতিরোধে সরকারি সচেতনতার পাশাপাশি জনগনকেও সচেতন ও সতর্ক থাকতে বলা হয়েছে।

এবার করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে পাবনা জেলার ভাঙ্গুড়ার ২নং খানমরিচ ইউনিয়ন চেয়ারম্যান ও ইউনিয়ন আওয়ামীলীগ সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা জনাব আসাদুর রহমান বি,এ নিজেই মাঠে নেমেছেন পুরো ইউনিয়ন পরিদর্শনে। সম্প্রতি খানমরিচ গ্রামে হোমকোয়ারেন্টাইন থাকা ৮ জনের বাড়ি গিয়ে পরিদর্শন করেন।

পরিদর্শন কালে চেয়ারম্যান বলেন,হোমকয়ারেন্টাইন মানেই যে করোনায় আক্রান্ত হয়েছে তা না,তবে বাংলাদেশে করোনার প্রাদুর্ভাব দেখা দেওয়ায়,লক ডাউন এলাকা থেকে এসেছে বলে তাদের হোমকোয়ারেন্টাইনে রাখা হয়েছে। তাছাড়া তিনি সকল পরিবারকে সচেতন ও সতর্ক থাকার আহবান জানান।

ইউ,পি চেয়ারম্যান আরও বলেন,জনপ্রতিনিধি বা সরকারি ভাবে একা করোনার প্রতিরোধ গড়া সম্ভব না, তবে সবাই সচেতন,সতর্ক ও সরকারি নিয়ম মেনে চললেই করোনার প্রতিরোধ গড়ে তুলতে পারব।

এছাড়া তিনি ইউনিয়ন এর সকল জনগনকে উদ্দেশ্য করে বলেন,বিনা কারনে কেউই ঘর থেকে বের হবেন না সরকার নিরলস ভাবে করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে কাজ করে যাচ্ছে।

এরপরে সরোজমিনে তিনি গ্রাম পরিদর্শন করেন এবং কোনো চা স্টল খোলা আছে কিনা নিজে গিয়ে পরিদর্শন করেন, পরিদর্শন কালে চেয়ারম্যান গ্রামের সব চা স্টল বন্ধ ও অযথা জনসমাগম না করার আহবান জানান। তিনি আরও বলেন,করোনা প্রতিরোধে সার্বক্ষণিক পুরো ইউনিয়ন স্থানীয় প্রশাসনের মাধ্যমে নজরদারিতে রাখা হবে।

পরিদর্শন কালে প্রজন্ম ৭১ থেকে মো: স্বপন (মাষ্টার) বলেন, আতংক নয় সচেতনতা ও সতর্কতাই পারে করোনার প্রতিরোধ গড়ে তুলতে।তিনি শিক্ষিত যুব সমাজ কে উদ্দেশ্য করে বলেন, আপনারা যারা শিক্ষিত যুবক আছেন,আপনারা সহমর্মিতার সাথে সমাজকে করোনা সম্পর্কে সচেতন ও সতর্ক করুন,যে যার জায়গায় থেকে করোনার প্রতিরোধ গড়ে তুলুন।

খানমরিচ ইউনিয়নের ময়দানদিঘী এবং চন্ডিপুর বাজারে দিনে সকল চায়ের দোকান বন্ধ থাকলেও রাত ৮ টার পরে বেশ কিছু চায়ের দোকান খোলা থাকে এবং দোকান গুলোতে বেশ ভীড় থাকে বলে নাম প্রকাশে অনুইচ্ছুক অনেকেই জানান। তারা সকলে এব্যাপারে ইউ,পি চেয়ারম্যানের দৃস্টি আকর্ষণ করেন।



Comments are closed.

      আরও নিউজ