বুধবার, ২৪শে এপ্রিল, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, ১১ই বৈশাখ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ, ১৫ই শাওয়াল, ১৪৪৫ হিজরি
বুধবার, ২৪শে এপ্রিল, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, ১১ই বৈশাখ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ, ১৫ই শাওয়াল, ১৪৪৫ হিজরি

আজ ১৮ ই ফেব্রুয়ারি, রাবিতে পালিত হচ্ছে “শহীদ জোহা দিবস”

বদরুল ইসলাম জামিলঃ আজ ১৮ ই ফেব্রুয়ারি, রাবিতে পালিত হচ্ছে “শহীদ জোহা দিবস । ড. সৈয়দ মোহাম্মদ শামসুজ্জোহা (১ মে ১৯৩৪ থেকে ১৮ ফেব্রুয়ারি ১৯৬৯ সাল)। তিনি রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের রসায়ন বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ছিলেন। বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টরের দায়িত্ব পালনকালে ১৮ ফেব্রুয়ারি ১৯৬৯ সালে আইয়ুব বিরোধী আন্দোলনের সময় পাকিস্তানি সেনাবাহিনীর আক্রমণের মুখে বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রদের রক্ষা করতে গিয়ে শহীদ হন তিনি।

শহীদ হওয়ার ঠিক আগের দিনে শিক্ষক সভায় পাকিস্তানি হানাদার বাহিনীর উদ্দেশ্যে তিনি বলেছিলেন “আজ আমি ছাত্রদের রক্তে রঞ্জিত, আর কোনো গুলি হবে না। এরপর যদি কোনো গুলি হয় সেটা আমার ছাত্রদের গায়ে লাগার আগে যেন আমার গায়ে লাগে।” ঠিক তার পরেরদিনেই তিনি শহীদ হন। জোহা স্যারের মৃত্যুতে সেদিন সারা বাংলা গর্জে ওঠে, এমনকি উনসত্তরের গনঅভ্যুত্থানের দিকে তরান্বিত হয়।

দিনটি ছিলো ১৯৬৯ সালের ১৮ ই ফেব্রুয়ারি। আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের বাঁচাতে মেইন গেটের দিকে ছুটে যান এই মহান শিক্ষক। সেখানেই পাকিস্তানি হানাদার বাহিনীর গুলিতে নির্মমভাবে শহীদ করা হয় তাকে। সেদিন জোহা স্যারের বুকের তাজা রক্তে রক্তিম হয়েছিলো মতিহারের সবুজ চত্বর। তাকে দেশের প্রথম শহীদ বুদ্ধিজীবী হিসেবে গন্য করা হয়।

১৮ ই ফেব্রুয়ারীকে স্বরণীয় করে রাখতে বিশ্ববিদ্যালয়ে নানা কর্মসূচির আয়োজন করা হয়। এবং শিক্ষার্থীরাও শ্রদ্ধার সাথে স্বরণ করেন মহান এই শিক্ষককে। এবং শিক্ষার্থীদের দাবী এই দিনকে যেন জাতীয় শিক্ষক দিবস হিসেবে পালন করা হয়।

সম্পর্কিত