বৃহস্পতিবার, ২৩শে মে, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, ৯ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ, ১৫ই জিলকদ, ১৪৪৫ হিজরি
বৃহস্পতিবার, ২৩শে মে, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, ৯ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ, ১৫ই জিলকদ, ১৪৪৫ হিজরি

অবশেষে মুক্ত এমভি আব্দুল্লাহ, উপকূল থেকে গ্রেপ্তার আট জলদস্যু

উত্তরবঙ্গ ডেস্ক: অবশেষে দীর্ঘ ৩২ দিন পর জলদস্যুদের হাতে জিম্মি হওয়া বাংলাদেশি জাহাজ এমভি আব্দুল্লাহ মুক্ত হয়েছে। শনিবার (১৩ এপ্রিল) স্থানীয় সময় দিবাগত রাত ১২টার দিকে মুক্তিপণ নিয়ে জলদস্যুরা জাহাজটি ছেড়ে সোমালিয়ার উপকূলে পৌঁছালে অন্তত আটজনকে দেশটির পুলিশ গ্রেপ্তার করে বলে জানিয়েছে দেশটির ‘গারোই’ নামের একটি স্থানীয় অনলাইন সংবাদমাধ্যম।

সংবাদমাধ্যমটির প্রতিবেদনে সোমালিয়ার স্বায়ত্তশাসিত অঞ্চল পান্টল্যান্ডের একজন উচ্চপদস্থ পুলিশ কর্মকর্তার বরাতে বলা হয়, বাংলাদেশি জাহাজ এমভি আবদুল্লাহকে জিম্মি করে রাখা আট জলদস্যুকে গ্রেপ্তার করেছে পান্টল্যান্ড পুলিশ। তবে জলদস্যুদের কাছ থেকে মুক্তিপণের অর্থ উদ্ধার করা হয়েছে কি-না তা নিশ্চিত হওয়া যায়নি।

এদিকে যুক্তরাজ্যভিত্তিক বার্তা সংস্থা রয়টার্স ও সোমালীয় সংবাদমাধ্যম দ্যা ডেইলি সোমালিয়া ৫০ লাখ মার্কিন ডলার মুক্তিপণের বিনিময়ে জাহাজটির মুক্ত হওয়ার তথ্য প্রকাশ করেছে। তবে এ বিষয়ে সোমালীয় সরকারের পক্ষ থেকে কোনো মন্তব্য পাওয়া যায়নি।

উল্লেখ্য, গত ১২ মার্চ ভারত মহাসাগর থেকে ২৩ নাবিকসহ বাংলাদেশি জাহাজ এমভি আবদুল্লাহকে জিম্মি করে সোমালীয় দস্যুরা। পরে তারা জাহাজটি সোমালিয়ার গদভজিরান জেলার জেফল উপকূল থেকে দেড় নটিক্যাল মাইল দূরে নোঙর করে রাখে। এ ঘটনার দীর্ঘ ৩২ দিন পর রবিবার (১৪ এপ্রিল) ভোর সাড়ে তিনটার দিকে জাহাজটিকে মুক্তি দেওয়া হয়েছে বলে জানায় জাহাজটির মালিক ও জলদস্যুদের সঙ্গে সমঝোতাকারী প্রতিষ্ঠান বাংলাদেশের কেএসআরএম গ্রুপ।

প্রতিষ্ঠানটির পক্ষ থেকে বলা হয়, জলদস্যুদের সঙ্গে জাহাজ ও নাবিকদের মুক্তির ব্যাপারে চলমান সমঝোতা সফলভাবে শেষ হওয়ায় দস্যুরা জাহাজটিকে আজ মুক্তি দিয়েছে। তবে কত টাকা মুক্তিপণ দেওয়া হয়েছে এ বিষয়ে কোনো কিছু জানানো হয়নি।

জাহাজটি বর্তমানে দুবাইয়ের পথে রয়েছে এবং নাবিকরা সকলে শারীরিকভাবে সুস্থ আছেন। আগামী ১৯ এপ্রিলের দিকে জাহাজটি দুবাইয়ের বন্দরে পৌঁছাবে বলে আশা করছেন কেএসআরএম গ্রুপের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মেহেরুল করিম।
এ সময় উদ্ধারকৃত নাবিকদের বিমানযোগে ঢাকায় নিয়ে আসার কথাও জানানো হয়।

মুক্ত হওয়ার পর জাহাজটির এক নাবিক অনলাইন যোগাযোগ মাধ্যম হোয়াটসঅ্যাপে পরিবারের সদস্যদের জানান, শনিবার বিকালে উড়োজাহাজ থেকে ব্যাগভর্তি ডলার জাহাজের পাশে ফেললে দস্যুরা তা কুড়িয়ে নিলেও জাহাজে অবস্থান করছিল। মূলত নৌবাহিনীর জাহাজ ও পান্টল্যান্ড পুলিশের নজরদারি এড়াতে গভীর রাতে তারা অর্থগুলো নিয়ে জাহাজ ছেড়ে যায়।

এ বিষয়ে বাংলাদেশের নৌ পরিবহন প্রতিমন্ত্রী খালিদ মাহমুদ রবিবার এক সংবাদ সম্মেলনে এটিকে নববর্ষের উপহার হিসেবে আখ্যা দিয়ে এত দ্রুত সময়ের মধ্যে জিম্মি উদ্ধারের ঘটনায় সন্তোষ প্রকাশ করেন। তবে টাকার বিনিময়ে বা মুক্তিপণ দিয়ে জিম্মিদের মুক্ত করার বিষয়টি সম্পর্কে তিনি অবহিত নন বলে জানান।

সম্পর্কিত